ডেস্টিনেশনের নাম "জটিলতর"

বিদায় শৈশব!
এই বলে যেই না স্টেশনটা পেরোলো,
অমনি একটা দুর্গম পথের উপর ঠিক যেন ঝাঁকিয়ে
উঠলো রেলগাড়িটা,
আমি তখন ভীষণ রকম উদ্বেগের শিকার,
কি হলো এমন ?  পথ এমন দুর্গম কেন?
খেয়াল পড়লো, শৈশব নামক স্টেশনকে যে,
ফেলে এসেছি।।
কয়েকবার হাতছানি দিয়ে ডাক দিয়ে ছিলো পিছনে,
আমি যে আর সাড়া দিতে পারিনি।
  তখন তো শরীর , মন আর মাথা জুড়ে,
কেবল একটা, দাবি জন্মেছে, পৃথিবীর বুকে,
আমিও একজন। বুঝতে পেরেছি যখন,
তখন আর ফেরার উপায় নেই।
মনে ভাবি, ডাউন লাইনে যদি অপেক্ষা করা যায় ,
তবে, কোনো ট্রেন কি আসবে না? আমাকে নিয়ে ফিরবে না,
শৈশবের স্টেশনে? ঠিক তখনই যেন শুনি একটা এনাউন্সমেন্ট হচ্ছে; "জীবন যে একমুখী নদী,
নিয়ম যে প্রকৃতির।"
ফেরার কোনো উপায় নেই, বয়সের সঙ্গে সঙ্গে এক একটা স্টেশন অতিক্রম করতে হবে, আরও এগিয়ে যেতে হবে।
শুধু কিছু সহজদের বিদায় জানিয়ে, জটিলদের সঙ্গলাভ।
আমি মানতে পারছি না আজ, এই সহজ সত্যিটা,
যেন আজ বড়ই অসহনীয়।
কি মারাত্মক উথাল-পাথাল চলছে, ভিতর জুড়ে।
কোথায় বা জীবন এতখানি জটিল তত্বদের লুকিয়ে,
রেখেছিল, যে আজ এভাবে মেলে ধরছে...
বোঝা যাচ্ছে না । শুধু অজানা, না বোঝাদের নিয়েই,
জীবন নামক এই রেলগাড়িটা , প্লাটফর্ম গুলোকে পেরিয়ে
যাচ্ছে। আমি গাড়ি থামানোর কোনো চেন খুঁজে পাচ্ছি না...

©মাম্পি মল্লিক





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য